একবিংশ শতাব্দীতে মানবতা ও সভ্যতা

[মোঃ জিয়াউদ্দিন]


একবিংশ শতাব্দীতে প্রকাশ্যে মানুষ বেচাকেনা হয় না। সময়ের পরিবর্তনের সাথে মানুষ বুঝতে পেড়েছে যে, মানুষ বেচাকেনা একটি ন্যাক্কারজনক প্রচলন।

এই উপলব্ধির জাগরণকে কি আমরা মানবতা ও সভ্যতার অগ্রগতি বলতে পারি?

হয়তোবা হ্যাঁ…!

কিন্তু বর্তমানে আমরা যখন শিশুদের দিয়ে টাকার বিনিময়ে কঠোর পরিশ্রমের (কামলা) কাজগুলো করিয়ে নেই, তখন মনে আবার প্রশ্ন আসে: মানবতা ও সভ্যতার প্রকৃত অগ্রগতি কি আদৌ হয়েছে? নাকি, অমানবিক আচরণ ও অসভ্যতার প্রকৃতিগত পরিবর্তন বা মডিফিকেশান হয়েছে মাত্র।

হয়তোবা সময়ের পরিবর্তনের সাথে মানব জাতির উপলব্ধির জাগরণ হয়েছে ঠিকই, কিন্তু সেই উপলব্ধিতে মনে হয় কোনো ত্রুটি আছে!

তাই তো আমরা এক প্রকারের অমানবতা ও অসভ্যতাকে আরেক প্রকারের অমানবতা ও অসভ্যতা দিয়ে প্রতিস্থাপন বা রিপ্লেস করেছি।

কেননা আজকে মানুষের বেচাকেনাকে না থাকলেও, আছে শিশুদের দিয়ে মাঠে-ঘাটে, হোটেল-রেস্তোরায় ও কলকারখানায় কঠোর পরিশ্রম করিয়ে নেওয়ার প্রচলন।

ভালো-খারাপের উপলব্ধি জাগরণের বিষয়টি হয়তোবা এখনও গুণীজনদের কোনো আলোচনায় ‘নীতিকথার’ জায়গা পূরণ করতে কাজে লাগে, কিন্তু ভালো-খারাপের উপলব্ধি আজ পর্যন্ত প্রকৃত অর্থে জাগানো সম্ভব হয়নি।


মোঃ জিয়াউদ্দিন একজন এডভোকেট।


 

Hits: 175

Leave a Reply